নেশার টাকা না পেয়ে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা

0
73

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ যশোরের বেনাপোল পোর্ট থানাধীন শিবনাথপুর বারোপোতা গ্রামে নেশার টাকা না পেয়ে ৮ মাসের গর্ভবতী স্ত্রী রুমা খাতুন নামে এক গৃহবধুকে শ্বাস রোধ করে হত্যার পর গলায় রশি দিয়ে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে ।

আরও পড়ুন >>>প্যালেস্টাইনে নারকীয় হামলার প্রতিবাদে যশোরে মানববন্ধন 

রুমা বেনাপোল পোর্ট থানার শিবনাথপুর বারোপোতা গ্রামের সাফিউল রহমান সাফির ছেলে  আরিফুল ইসলাম টুটুল এর স্ত্রী ও একই থানার ইছাপুর গ্রামের খালেকের মেয়ে।

শনিবার দিন গত রাত্রে শিবনাথপুর বারোপোতা গ্রামে রুমার শশুর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

পোর্ট থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে যশোর সদর    হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। তবে এ ঘটনায় পুলিশ এখনো পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি।

স্থানীয় অনেকে বলেন, শিবনাথপুর বারোপোতা গ্রামের প্রভাবশালী মাদক ব্যাবসায়ী মোমিন মেম্বার এর ভাতিজা আরিফুল ইসলাম। ঘটনাটি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য সে হুমকি ধামকি দিচ্ছে হত্যার শিকার নারী রুমার  পিতার পরিবারকে।

মেয়ের মামা আব্দুর রহমান ও খালাত ভাই রেজাউল ইসলাম বলেন, আরিফুল একজন মাদক ব্যবসায়ি ও মাদকসাক্ত। সে তার চাচা মোমিন মেম্বার এর সাথে  মাদক ব্যবসা করে। মোমিন ও তার  নামে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। সম্প্রতি মোমিন বিজিবি’র কাছে  হাতে নাতে ১০০ বোতল ফেনসিডিল ও একটি মোটর সাইকেল সহ আটক হয়।

এর আগে র‌্যাব তার বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ ফেন্সিডিল সহ আটক করে। আর এই ব্যবসার সহযোগিতা করে আরিফুল। নেশার টাকা না পেয়ে  রাত্রে কোন এক সময় ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে গলায় রশি দিয়ে ঝুলিয়ে রাখে।

রুমার চাচাতো ভাই শামিম হোসেন বলেন, মাঝে মধ্যে তাদের স্বামী স্ত্রীর মধ্যে গন্ডগোল হতো। আমরা আমার বোনকে বাড়ি নিয়ে যেতাম। তখন আরিফুল রুমাকে  হুমকি দিত তুই যদি বাড়ি না আসিস তোর পিতাকে কুপিয়ে হত্যা করব। এই ভয়ে রুমা তার স্বামীর বাড়ি আবার  ফিরে যেতে বাধ্য হতো । এছাড়া এ বিষয়ে থানায় যাতে কোন মামলা না করি সে জন্য মোমিন ও তার ভাই  আমাদের হুমকি দেয়।

রুমার আত্নীয় স্বজনরা জানায়, যেখানে লাশ ঝুলানো  ছিল সেইখানকার উচ্চতা ছিল মাত্র ৫ ফুট। রুমার পা মাটিতে বেধে ছিলো। এতে প্রমান হয় তারা গৃহবধু রুমাকে হত্যা করে সেখানে ঝুলিয়ে রেখেছিলো।

বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ মামুন খান বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর মর্গে পাঠানো হয়েছে।  ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলে বুঝা যাবে এটা হত্যা নাকি আত্নহত্যা।


LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here