যশোর কেশবপুরে ঘের নিয়ে উত্তেজনা যে কোন মুহুর্ত্বে সংঘর্ষের আশঙ্কা

268
কেশবপুরে-রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের-রুপ
প্রতীকি ছবি

মশিয়ার রহমান,(যশোর) কেশবপুর:  যশোরের কেশবপুরের সাগরদত্তকাটি আমতলা বিলের একটি মাছের ঘের নিয়ে দু পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহুর্ত্বে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে রুপ নিতে পারে।

এতে প্রাণহানির ঘটনা ঘটতে পারে বলে জমির মালিকরা আশঙ্কা করছেন।এসব কারণে মাইকিং করে ঘের অভ্যন্তরের জমির মালিকরা জরুরীসভা করেছেন। থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

জানা গেছে, কেশবপুর পৌরসভার আলতাপোল এলাকার ব্যবসায়ী কামরুজ্জামান বিশ্বাস ২০১৮ সালে পাঁজিয়া ইউনিয়নের সাগরদত্তকাটি আমতলা বিলে জমির মালিকদের নিকট থেকে ৩২৫ বিঘা জমি নিয়ে ৫ বছর মেয়াদে একটি মাছের ঘের করেন।

এ ঘের নেয়ার পর দুই বার বন্যা ও জলাবদ্ধতার কারনে প্রায় দেড় কোটি টাকা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হলে মালিকদের হারির টাকা পরিশোধ করে ঘেরটি ছেড়ে চলে আসেন কামরুজ্জামান বিশ্বাস।

এর পর জমির মালিকরা পুণরায় কম মুল্যে তাকে আবারো মৎস্য চাষের জন্য জমি ডিড করে দেয়।

সে মোতাবেক কামরুজ্জামান বিশ্বাস আরো দেড় বছর মাছ চাষ করতে পারবে। মেয়াদ থাকা সত্বেও একটি কুচক্রি মহল ঘের কমিটির তিন জনকে সাথে নিয়ে ঘেরটি দখলের প্রচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে।

গত ৫ ডিসেম্বর শনিবার বিকেলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে অপর ঘের মালিক কেরামত গাজীর ছেলে ইয়াছিন গাজীর নের্তৃত্বে কেশবপুর, সাবদিয়া আলতাপোল ও সাগরদত্তকাটি গ্রামের ১৮ থেকে ২০ জন যুবককে নিয়ে কামরুজ্জামানের মাছের ঘেরটি দখল করতে যায়।

এ সময় গ্রামবাসির বাধার মুখে ধাওয়া খেয়ে ঘেরের দখল নিতে তারা ব্যর্থ হয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ঘের মালিক কামরুজ্জামান বিশ্বাস বাদি হয়ে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন যার নং- ১৮৪।

এতো কিছুর পরও তারা থেমে থাকেনি। প্রতিনিয়ত জমির মালিকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তারা হুমকী দিচ্ছে বলে অভিযোগ। জমির মালিক সুকুমার জোয়ার্দার, আনন্দ মন্ডল, তাজ উদ্দিনসহ একাধিক জমির মালিক জানান, তারা ঘের মালিক কামরুজ্জামানের পক্ষে থাকায় তাদেরকে প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে।

এ ঘটনার প্রতিবাদে ১১ ডিসেম্বর শুক্রবার বিকেলে সাগরদত্তকাঠি ঘের পাড়ে মাদ্রাসা মাঠে জমির মালিকরা মাইকিং করে মিজানুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে এক জরুরী সভা করেন। সভায় বক্তব্য রাখেন, হাজী নুর উদ্দিন মাষ্টার, আব্বাস আলী সরদার, হোচেন আলী, নাজিম উদ্দিন, শীতল মন্ডল, এনায়েত আলী,বদরুজ্জামান ও ঘের মালিক কামরুজ্জামান বিশ্বাস। সভায় সর্বসম্মত ভাবে বর্তমান দেড় বছর মেয়াদ থাকলেও আগামি আরো ৫ বছরের জন্য কামরুজ্জামান কে ঘেরটি ডিড করে দেয়া হয়।

তারা সভা থেকে জানান, ২২ জন বিশিষ্ট ঘের কমিটির মধ্যে মাত্র ৩ জন ব্যক্তি কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে এলাকায় অশান্তি সৃষ্টি করে চলেছে।

এ ব্যাপারে কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জসিম উদ্দিন বলেন, ঘের দখল প্রচেষ্টাকারীদের বিরুদ্ধে ঘের মালিক কামরুজ্জামান বিশ্বাস একটি অভিযোগ করেছেন। তদন্তপুর্বক দোষিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। কেশবপুরে কোন ঘের নিয়ে জনগণের মধ্যে অশান্তির সৃষ্টি করতে দেয়া হবে না।

এ নিয়ে এলাকায় থমথমে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

আরওপড়ুন:
নড়াইলে মারাত্মক মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা
খুলনায় জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত
হেফাজত ইসলামের মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমীর ইন্তেকাল

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here