চুয়াডাঙ্গায় দৌড় দিয়ে নারী আটক করলো পুলিশ

জনি আহমেদ, চুয়াডাঙ্গাঃ দিন যতই যাচ্ছে চুয়াডাঙ্গায় ফেন্সিডিল, ইয়াবা, নেশার ইঞ্জেকশনসহ বিভিন্ন প্রকার মাদকের পাচার বেড়েই চলেছে। আর সেইসব মাদক চুয়াডাঙ্গা জেলায় চাহিদা মিটিয়ে বাইরের জেলায়ও বিস্তার করছে মাদকচোরাকারবারীরা।
যার ফলে সমাজের কিশোর-যুবসমাজ মাদকের প্রেমে পড়ে নষ্ট করছে তাদের ভবিষ্যৎ। যার দেখভালের দায়ভার প্রশাসনের থাকলেও ততটা জোর তৎপরতা না থাকায় ক্রমশঃই সাহস পাচ্ছে মাদককারবারীরা। আবার ধরাও পড়ছে প্রতিনিয়তই।
তারই অংশ হিসেবে মরণনেশা ২ হাজার পিস ভারতীয় ট্যাপেন্ডাল ট্যাবলেটসহ সালেহা খাতুন(৩০) নামের এক মাদকচোরাকারবারীকে আটক করা হয়েছে।
শনিবার(০১ অক্টোবর) জেলার দর্শনা বাস্ট্যান্ড সংলগ্ন থেকে তাকে আটক করে দর্শনা থানা পুলিশ।
থানা সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে দর্শনা থানার এসআই হারুনার রশিদ ও এস আই ফিরোজ হোসেনের নেতৃত্বে বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে স্থানীয় বাসস্ট্যান্ডের পাশে অবস্থান করে। সেসময় সালেহা খাতুন পুলিশ দেখে দৌড় দিলে তাকে ধরে ফেলে পুলিশ। পরে তার দেহ তল্লাশি করে ২ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।
সালেহা খাতুন দর্শনা পৌরসভার দক্ষিনচাদপুর গ্রামের লিটন মিয়ার স্ত্রী।
দর্শনা থানার ওসি এ এইচ এম লুৎফুল কবির জানান, ইয়াবাসহ ওই নারী মাদকচোরকারীকে কোর্টে চালান করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here