যশোরে নিজেদের ট্রলির চাকায় পিষ্ট হয়ে দুই ভাই বোনের মৃত্যু

14
ট্রলির চাকায় পিষ্ট হয়ে দুই ভাই বোন

স্টাফ রিপোর্টারঃ মাটিবাহী ট্রলি নিয়ে বের হচ্ছিলেন পিতা। বাড়ির মধ্যে সেই ট্রলির নিচে পিষ্ট হয়ে জাহিয়া খাতুন (৪) ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন। তার সাথে পিষ্ট হয়ে মারা গেছেন চাচাতো ভাই আবু হুরায়রা (২)। রোববার জুলাই ১৭ সকালে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে যশোর সদরের জিরাট গ্রামে।

নিহতরা হলেন, ট্রলিচালক কামাল হোসেনের মেয়ে জাহিয়া খাতুন ও জামাল হোসেনের ছেলে আবু হুরায়রা।

নিহত শিশু জাহিয়া খাতুনের পিতা কামাল হোসেন বলেন, প্রতিদিনের মত বাড়ি থেকে ট্রলি নিয়ে মাটি টানার উদ্দেশ্যে বের হচ্ছিলাম। তখন খেয়াল করিনি পেছনে কেউ আছে কি না। যখন গাড়ি পেছনের দিকে নিতে যাই তখন বাঁধা অনুভব করছিল। বারবার পেছনের দিকে গাড়ি নিতে যাচ্ছিলাম। তখন না গেলে গাড়ি থেকে নেমে দেখি আমার শিশু বাচ্চা জাহিয়া আর ভাইয়ের ছেলে পিষ্ট হয়ে চাকার সঙ্গে এঁটে আছে।

আরও পড়ুন>>>মহানবী (সাঃ) কে নিয়ে ফেসবুকে কটূক্তিকরা সেই আকাশ সাহা আটক

কান্নাকণ্ঠে তিনি আরো বলেন, ট্রলি যখন চালু করা হয় তখন গাড়ির একটা ব্যাপক আওয়াজ হয়; সেই আওয়াজের মধ্যে তাদের চিৎকার শুনতে পাইনি। মৃত্যুর আগে কতই না যন্ত্রণা পেয়েছে আমাদের কলিজার টুকরারা।

একই সময়ে একই পরিবারে দুই শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যুতে পরিবারজুড়ে চলছে শোকের মাতম। প্রিয়জনকে হারানোর বেদনায় বুকফাটা কান্না আর আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠেছে জিরাট গ্রামের কামাল হোসেনের বাড়ির পরিবেশ। তাদের কান্না দেখে চোখের জল ধরে রাখতে পারছেন না প্রতিবেশিরাও। একসঙ্গে দুই অবুঝ শিশুর এভাবে চলে যাওয়ায় বারবার মুর্ছা যাচ্ছেন শিশু দুটির মায়েরা।

যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি তাজুল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি জানার পর স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পারিবারিক একটা দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে দুই শিশু। স্বজনদের কোন অভিযোগ না থাকায় শিশু দুটির মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here