পাইকগাছায় মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে মাদ্রাসা সুপার আটক

291
পাইকগাছায় মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে মাদ্রাসা সুপার আটক

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি॥ পাইকগাছায় মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পাইকগাছা থানায় ধর্ষণ মামলা হয়েছে।

পুলিশ মাদ্রাসা সুপার হাবিবুর রহমানকে আটক করেছে। আটক হাবিবুর লস্কর-পাইকগাছা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার ও কয়রা উপজেলার খিরোল গ্রামের আব্দুল হাকিম সরদারের ছেলে।

ভিকটিম একই মাদ্রাসার ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী ও ভিলেজ পাইকগাছা গ্রামের জনৈক ব্যক্তির নাতনী।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, পিতার মৃত্যুর কারণে ভিকটিম তার মায়ের সাথে গত ৯ মাস ভিলেজ পাইকগাছা গ্রামে নানার বাড়ীতে বসবাস করে আসছে। তার মা এবং নানা তাকে একই এলাকার লস্কর-পাইকগাছা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার ৪র্থ শ্রেণিতে ভর্তি করে দেয়। তার মা বর্তমানে ইট-ভাটায় শ্রমিকের কাজ করেন।

করোনার কারণে মাদ্রাসা বন্ধ থাকলেও প্রতি রবিবার মাদ্রাসা সুপার ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষা নেন।
গত ৩০ নভেম্বর সোমবার ভোরে মাদ্রাসা সুপার ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাড়ীতে এসে তাকে মাদ্রাসায় যাওয়ার কথা বলে।

সে অনুযায়ী ভিকটিম ছাত্রী মাদ্রাসায় গেলে অন্যান্য ছাত্র-ছাত্রীদের বাড়ীতে পাঠিয়ে দিয়ে মাদ্রাসার শয়নকক্ষে ফেলে ভিকটিম ছাত্রীকে মাদ্রাসা সুপার জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

ঐ দিন সকাল ৮টার দিকে মাদ্রাসা থেকে কাঁদতে কাঁদতে বাড়ীতে আসলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে মাদ্রাসা সুপারের জোড় করে তাকে ধর্ষণ করেছে বলে জানায়।

এ ঘটনায় ভিকটিমের নানা বাদী হয়ে থানায় মাদ্রাসা সুপারকে আসামী করে ধর্ষণ মামলা করে। যার নং- ০২, তাং- ০২/১২/২০২০ ইং।

ওসি এজাজ শফী জানান, এ ঘটনায় মাদ্রাসা সুপার হাবিবুর রহমানকে আটক করা হয়েছে।

ওসি (তদন্ত) আশরাফুল আলম বলেন, আটক সুপারকে আদালতে এবং ভিকটিম ছাত্রীকে উদ্ধার করে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here