বেনাপোলে পুলিশ আয়োজিত “ওপেন হাউস ডে” অনুষ্ঠিত

বেনাপোলে পুলিশ আয়োজিত

এস এম মারুফ, স্টাফ রিপোর্টারঃ “দক্ষ পুলিশ, সমৃদ্ধ দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ” এই স্লোগানে যশোরের বেনাপোল পোর্ট থানা ও শার্শা থানা পুলিশের আয়োজনে “ওপেন হাউস ডে” কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার সময় বেনাপোল পোর্ট থানার সামনে এ অনুষ্ঠানটি শুরু হয়।

নাভারণ সার্কেল সহকারী পুলিশ সুপার জনাব জুয়েল ইমরান এর সঞ্চালনায় ও শার্শা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মামুন খানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা পুলিশ সুপার জনাব প্রলয় কুমার জোয়ারদার, বিপিএম (বার) পিপিএম যশোর।

আরও পড়ুন>>>চুয়াডাঙ্গায় ঘর তালাবদ্ধ; ভিতরে স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ

এসময় পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার উপস্থিত সকল শ্রেণি পেশার মানুষের সমস্যার কথা শোনেন এবং থানা পুলিশ কোন প্রকার হয়রানি, চাঁদাবাজি বা সাধারণ মানুষের প্রতি পুলিশের সেবায় কোন প্রকার ত্রুটি হচ্ছে কি-না সে বিষয়ে মুক্ত আলোচনা করে।

এসময় বর্তমান বেনাপোল পোর্ট থানা ও শার্শা থানা পুলিশের সেবার মান নিয়ে কোন প্রকার অভিযোগ নয় বরং প্রশাংসা করেন অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাধারণ জনতা।

তবে কিছু কিছু এলাকায় মাদক, জোয়ার আসর, স্বাস্থ্য সেবা, ট্রাফিক সেবার মান ও সড়ক যানজট নিরসনের বিষয়ে অভিযোগ ওঠে। এবিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার দ্রুত সময়ের মধ্যে সমস্যা সমাধানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বলেন, বাহাদুর স্কুলের পাশে এবং ওই এলাকায় জোয়ার আসর সম্পর্কে আমার জানা ছিল না। এখন আপনাদের কাছ থেকে জানতে পেরেছি, আমি দ্রুত সময়ে মোবাইল কোর্ট বসিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

তিনি আরও বলেন, বেনাপোলে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা উন্নত করতে আমি উর্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করেছি যাতে এলাকার মানুষের স্বাস্থ্য সেবার মান নিশ্চিত করতে।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন- শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল হক মঞ্জু, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অহিদুজ্জামান অহিদ, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাসির উদ্দীন, বেনাপোল সিএন্ডএফ এর সভাপতি আলহাজ্ব সামছুর রহমান, উপজেলার ১১ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সাংবাদিক, বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামাল হোসেন ভুঁইয়া, বীর মুক্তিযুদ্ধা সদস্য, হ্যান্ড লিংক শ্রমিক, ব্যাংক কর্মকর্তা, শিক্ষক, অভিভাবক ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here