ভারতে নিম্নবর্ণে বিয়ে করায় ভায়ের গুলিতে খুন

349
ভারতে-নিম্নবর্ণে বিয়ে-গুলিকরে খুন

আন্তর্জাতিক ডেক্স: ভারতে পরিবারের অমতে এক দলিত যুবককে বিয়ে করার অপরাধ গুলি করে নিজের বোনকে খুন করেছে আপন ভাই ও পরিবারের সদস্যরা।

ভারতে নিম্নবর্ণে বিয়ে করায় খুনের ঘটনা যেন থামছেই না। সম্প্রতি এক তরুণী এমন নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন।

বর্বর এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য উত্তরপ্রদেশের মইনপুরি জেলায়।

হত্যার শিকার ওই তরুণীর নাম চাঁদনি কাশ্যপ। দীর্ঘ আট বছর ধরে অর্জুন কুমার নামে এক তরুণের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক , চলতি বছরের জুনে প্রতাপগড় জেলায় অর্জুনকে বিয়ে করেন চাঁদনি।

এরপর তাঁরা সংসার শুরু করেন দিল্লিতে। অর্জুন দলিত পরিবারের ছেলে হওয়ায় তাদের বিয়েতে প্রথম থেকেই মত ছিল না চাঁদনির পরিবারের। সে কারণে প্রথমদিকে চাঁদনির পরিবারের কেউই তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখেনি।

পরবর্তীতে চাঁদনির ভাইয়েরাই যচে পড়ে যোগাযোগ শুরু করেন। এরপরই তারা তাদের বোনকে বাড়িতে আসার জন্য বোঝাতে থাকেন।
শেষ পর্যন্ত গত নভেম্বর মাসে চাঁদনি পরিবারের অনুরধে মইনপুরে নিজের বাড়িতে যান।

কিন্তু বাড়ি ফিরতেই এই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার জন্য চাঁদনির উপর তার পরিবারের লোকজন চাপ দিতে থাকেন। শুরু হয় অকথ্য অত্যাচারও।সেকথাঅর্জুনকে জানিয়েছিলেন চাঁদনি।

এরপর ২০ নভেম্বর দু’জনের মধ্যে শেষবারের মতো কথা হয়।

তিনি অর্জুনকে জানান যে, বাড়ির লোকজন তাকে দিল্লি যেতে দিচ্ছে না, তার উপর নির্যাতন চালানো হচ্ছে। অর্জুনের অভিযোগ, বাড়ি যাওয়ার পর থেকেই চাঁদনির ফোন মাঝে মাঝেই বন্ধ থাকত। ২০ তারিখের পর আর কোনও যোগাযোগ হয়নি।

এরপরই অর্জুনের সন্দেহ হওয়ায় পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। তারপর নিজের চাচা এবং মাকে নিয়ে চাঁদনির বাড়িতে যান। কিন্তু তার বাড়ির লোকজন জানায়, সে একাই দিল্লি চলে গেছে।

অনেক খোঁজাখুঁজির পর একটি মাঠের ভেতর থেকে চাঁদনির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

তার শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তার দেহ গুলিবিদ্ধ ছিল। ইতোমধ্যেই মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ওই তরুণীর পরিবারের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডের তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুন:
বেনাপোল দারুল উলুম কওমি মাদ্রাসায় অভিভাবক আলোচনা অনুষ্ঠিত
গুণী লেখক, যশোরের বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সংগঠক দেওয়ান মোর্শেদ আলমের জন্মদিন আজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here