যশোরে মণিরামপুর স্কুল ছাত্রী অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় স্বীকারোক্তি

0
148
মণিরামপুর স্কুল ছাত্রী অপহরণ ও ধর্ষণ
প্রতীকী ছবিঃ যশোরে মণিরামপুর স্কুল ছাত্রী অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় আসামীর আদালতে স্বীকারোক্তি।

মণিরামপুর,প্রতিনিধি,যশোরঃ যশোর মণিরামপুর উপজেলার খাটুয়াডাঙ্গা পল্লীর স্কুল ছাত্রী অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় আটক সবুজ গাজী আদালতে তার জবানবন্দিতে স্বীকারোক্তি দিয়েছে।

রোববার( ১ আগষ্ট ) যশোর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারক মামুনুর রহমান আসামির এ জবানবন্দি গ্রহন শেষে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

আটক সবুজ গাজী মণিরামপুর উপজেলার পোড়াডাঙ্গা গ্রামের ছাত্তার গাজীর ছেলে। সে পেশায় এক জন রঙ মিস্ত্রী।

জবানবন্দিতে সবুজ গাজী জানান, ওই ছাত্রীর সাথে সবুজের বন্ধু পোড়াডাঙ্গা গ্রামের ইয়াসিনের সাথে প্রেম ছিল। প্রেমের সম্পর্ক ধরে ইয়াসিন তাকে বিয়ে করবে বলে বাড়িতে নিয়ে এনে ধর্ষণ করে বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন>>>শ্রমিকরা কর্মস্থ‌লে ফির‌ছে ঢাকা টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট

যশোরে মণিরামপুর স্কুল ছাত্রী অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় আসামীর আদালতে স্বীকারোক্তি
সবুজ আরো জানিয়েছেন, গত ২৭ জুলাই বন্ধু ইয়াসিন তাকে ফোন করে জরুরী দেখা করতে বলে। এরপর এনামুলের দোকানের সামনে দেখা হলে কথা আছে বলে কালী মন্দিরের সামনে নিয়ে যায়। সেখানে গেলে ওই স্কুল ছাত্রীকে অন্ধকারে ব্যাগ হাতে দাড়িয়ে থাকতে দেখে। এরপর ইয়াসিন তাকে সাথে নিয়ে তাদের বাড়িতে যায়। সবুজ ও তার বাড়িতে চলে যায়।

আরও পড়ুন>>>ফুলের শুভেচ্ছায় সিক্ত জেলা আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য সাগর

যশোরে মণিরামপুর স্কুল ছাত্রী অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় আসামীর আদালতে স্বীকারোক্তি
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, গত ২৭ জুলাই ওই ছাত্রীকে সবুজের সহযোগীতায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায় ইয়াসিন। রাতে তার ঘরে আটকে ধর্ষণ করে পরেরদিন বিয়ে করবেনা বলে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

এ ব্যাপারে ওই ছাত্রীর মা ইয়াসিন ও সবুজকে আসামি করে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে মণিরামপুর থানায় মামলা করেন।

আরও পড়ুনঃ
নোয়াখালীতে বাকপ্রতিবন্ধী যুবতীকে ধর্ষণ
সিলেট সীমান্তে চোরাকারবারীদের নতুন কৌশল,পণ্য ভেসে আসছে নদীপথে
রাজশাহীতে কলেজের চুরি যাওয়া কম্পিউটার সামগ্রী উদ্ধার ৪ জন গ্রেফতার
মহেশপুরে পূর্বশত্রুতার জেরে ভাতিজার হাতে চাচা জখম
বাগআঁচড়ায় এক সন্তানের জননীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগঃ স্বামী পলাতক


LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here