যশোরে জাতীয় পার্টির কর্মীসভা জনসভায় পরিণত

0
99
যশোরে জাতীয় পার্টির কর্মীসভা

     ‘দেশের মানুষ আওয়ামী লীগ বিএনপিকে প্রত্যাখান করেছে’

সদর প্রতিনিধি যশোরঃ যশোরে জাতীয় পার্টির কর্মীসভা জনসভায় পরিণত হয়েছে। শনিবার (১৩ মার্চ) বিকেলে যশোর-৪ সংসদীয় আসনের অর্ন্তভুক্ত সদর উপজেলার বসুন্দিয়া মোড়ে কর্মীসভায় নেতাকর্মীদের ঢল নামে। এতে বসুন্দিয়া ইউনিয়ন ছাড়াও বাঘারপাড়া ও অভয়নগর উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

আরও পড়ুন>>>যশোরের বেনাপোল সীমান্তে ২শ বোতল ফেনসিডিল,৪ কেজি গাজাসহ ১জন আটক

সভায় মোবাইল ফোনে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের ও মহাসচিব জিয়াউদ্দিন বাবলু। তারা নেতাকর্মীদের দিকনির্দেশনা দিয়ে তৃণমূলে জাতীয় পার্টিকে আরও শক্তি কার আহবান জানান।

যশোর জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আজিজুর রহমান আজিজের সভাপতিত্বে কর্মীসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও খুলনা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত অতিরিক্ত মহাসচিব সাহিদুর রহমান টেপা।

তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে প্রত্যাখান করেছে এদেশের মানুষ। বাংলাদেশের মানুষ জাতীয় পার্টিতে আস্থা রাখছে। আগামিতে জাতীয় পার্টিকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় দেখতে চায়। সন্ত্রাস, অত্যাচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার জাতীয় পার্টি। সুযোগ দিন জাতীয় পার্টি সোনার বাংলা গড়ে দিবো। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের এর নির্দেশে মানুষের কাছে সমর্থন ভিক্ষা চাইছি। কারণ এদেশের মানুষকে বাঁচাতে হবে। এই এলাকার মানুষ আওয়ামী লীগের স্থানীয় সংসদ সদস্য রণজিৎ কুমার রায়ের কাছে নির্যাতিত নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে বাঁচাতে হলে জাতীয় পার্টিকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনতে হবে।

আরও পড়ুন>>>কপিলমুনিতে ১৪৪ধারা ভেঙ্গে ঘের দখল করে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান

সাহিদুর রহমান টেপা আরও বলেন, দেশের সাধারণ মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। ভোট দিতে গেলে মার খেতে হয়। নির্বাচনের আগের দিন ভোট হয়ে যায়। গণতন্ত্রের নামে দেশে একনায়কতন্ত্র শাসন চলছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে দেশের সব ধর্মের বর্ণের মানুষের অধিকার নিশ্চিতে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলাম। বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়ন হয়নি। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা শ্মশানের পরিণত হয়েছে। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ এদেশের মানুষকে উন্নয়নের বাংলাদেশ উপহার দিয়েছিলেন। পল্লীবন্ধুর সেই উন্নয়ণের ধারা অব্যাহত রাখতে দরকার ক্ষমতার পালাবদল। আগামিতে জনগণের ভোটে জাতীয় পার্টি সরকার গঠন করতে চাই।

সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা হাসান সিরাজ সুজা ও নাজনীন সুলতানা, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শফিকুল ইসলাম মধু, সাংগঠনিক সম্পাদক এবিএম লিয়াকত হোসেন চাকলাদার। প্রধান বক্তা ছিলেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. জহুরুল হক জহির। জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাড. ইমদাদুল হক উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক মুক্তি নুরুল আমিন, নজরুল ইসলাম, জেলা জাতীয় পার্টির নেতা মনিরুজ্জামান হিরণ, বসুন্দিয়া ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি আবদুর রশিদ খান, সাধারণ সম্পাদক কেএম তুহিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ শাহাবুদ্দিন শাওন প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here