যশোর থেকে চুরি যাওয়া চাল পাবনা থেকে উদ্ধার আটক-১০

যশোর থেকে চুরি যাওয়া চাল

জেলা প্রতিনিধি যশোরঃ যশোর জেলা গোয়েন্দা সংস্থা (ডিবি) পুলিশ পাবনা জেলা থেকে ১৫৩ বস্তা চুরি হওয়া চাল উদ্ধার ও চাল বিক্রির এক লাখ ১৬ হাজার ২শ টাকা উদ্ধার করেছে। এসময় চোর চক্রের ১০ সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে পাবনা জেলার আমিনপুর থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে এসব চাল উদ্ধার ও আসামিদের আটক করা হয়।

আরও পড়ুন>>>রোকেয়ার প্রেমিক কাবিলা এখন ইভার টানে কক্সবাজার!

গ্রেফতারকৃত সংঘবদ্ধ চোর চক্রের সদস্যরা হলো পটুয়াখালী জেলার গলাচিপা উপজেলার শৈলাবুনিয়া গ্রামের ইয়াকুব মৃধা, বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার হলুদিয়া গ্রামের রুবেল(২৭), ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার পিরোজপুর গ্রামের শফিয়ার রহমান ওরফে শফি ড্রাইভার (৪৫), বরগুনার উত্তর ঘোপখালী গ্রামের মহসীন(৩১) একই জেলার আমতলী আরপাঙ্গাশিয়ার ফেরদৌস হাওলাদার (২৮), পাবনা জেলার আমিনপুর উপজেলার আমিনপুর বাজার এলাকার সেলিম ওরফে ক্যারফা সেলিম(৫৪), একই জেলার চকঘরিয়া এলাকার আবদুর রাজ্জাক (৪০), চরপাড়া গ্রামের রুবেল প্রমানিক (৩০), হযরত প্রামাণিক (৩৫),
ও আমিনপুর বাজারের এস এম রফিকুল ইসলাম (৪১)। এদের কাছ থেকে ১৫৩ বস্তা চুরি হওয়া চাল, নগর এক লাখ ১৬ হাজার ২শ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

যশোর জেলা গোয়েন্দা সংস্থা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রুপন কুমার সরকার, বিজ্ঞপ্তিতে জানান, গত ১৯ জুলাই যশোরের শার্শা উপজেলার যাদবপুর গ্রামের মাহবুবুর রহমানের দোকান থেকে ৫০-৬০ বস্তা চাল চুরি হয়ে যায়। এসময় চোরেরা ক্যাশ থেকে নগর ৬০ হাজার টাকা নিয়ে যায়। এই ঘটনায় তিনি শার্শা থানায় মামলা করেন। মামলা নং-২১। বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নিয়ে জেলা পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়াদ্দার মামলাটি তদন্তের ভার দেন ডিবি পুলিশকে।

ডিবি একটি টিম তদন্তের মাধ্যমে তথ্য প্রযুক্তি ও গোপন তথ্যের ভিত্তিতে প্রথমে ইয়াকুব মৃধা, শফিয়ার রহমান ওরফে শফি ড্রাইভারকে আটক করে। পরে তাদেরকে সাথে নিয়ে পাবনা জেলার আমিনপুর থানা এলাকায় ১৯ সেপ্টেম্বর অভিযান পরিচালনা করে সেলিম ওরফে ক্যারফা সেলিম, আ. রাজ্জাক, রুবেল প্রামানিক, হযরত প্রামাণিক, এসএম রফিকুল ইসলামদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের তথ্য মতে আসামি রুবেলের কাছ থেকে ২৪ টি ২৫ কেজির চাউলের বস্তা, খালি ১২ পিস বস্তা ও চাউল বিক্রির ১৬, হাজার ৫শ টাকা, হযরত প্রামাণিক কাছ থেকে ৭টি ৫০ কেজির বস্তা চাল, চাল বিক্রির এক লাখ টাকা ও খালি ১০টি বস্তা এবং রফিকুল ইসলামের কাছ থেকে ৮৬টি ২৫কেজির বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন জেলায় একাধিক ডাকাতি, চুরির মামলা বিচারাধীন রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here